‘ভারতে গণহত্যার প্রস্তুতি চলছে’ – Gregory Stanton

পোষ্টটি অন্যকে পড়ার সুযোগ করে দিতে শেয়ার করুন প্লিজ।

হিন্দুস্তানের চলমান অবস্থা নিয়ে আমাদের ঠিক কতোটুকু চিন্তিত হওয়া উচিৎ? দীর্ঘদিন ধরে এ প্রশ্নটাকে আমরা গুরুত্ব দেইনি। আমরা উপেক্ষা করেছি, ভুলে থাকতে চেয়েছি। এখন আর উপেক্ষা করার সময়-সুযোগ, কোনটাই নেই।

ভারতে এক্সাক্টলি কী হচ্ছে :: আসামের বাঙালি মুসলিম এবং সেদিনের মঙ্গোলিয়া – গোলাম লিসানী দস্তগীর

পোষ্টটি অন্যকে পড়ার সুযোগ করে দিতে শেয়ার করুন প্লিজ।

মহাকাল এক রকম থাকে না। থাকবে না। যে মঙ্গোলিয়া ৪,৪০০ যুদ্ধজাহাজ নিয়ে জাপান আক্রমণ করেছিল, তাদের নৌবাহিনীর নাবিক এখন ৭ জন, তাদের মধ্যে ৬ জন সাঁতার জানে না। মোদি-অমিত এবং উগ্র হিন্দুত্ববাদীরা ভারতের জন্য সেই ধরনের দিন নিয়ে আসছে সম্ভবত।

কোনও বিভাজনের সংস্কৃতি ভারতের আত্মা নয় -দেবযানী ভৌমিক চক্রবর্তী

পোষ্টটি অন্যকে পড়ার সুযোগ করে দিতে শেয়ার করুন প্লিজ।

আমরা যখনই কোনও জওয়ানের কাছে শুনি যে, তিনি জম্মু-কাশ্মীরে কর্মরত তখনই আতঙ্কিত হয়ে পড়ি। কারণ সেখানে জীবনের ঝুঁকি অনেক বেশি। লিখছেন দেবযানী ভৌমিক চক্রবর্তী

কাশ্মীরের কলি তা হলে হাতের নাগালেই! – জিনাত রেহেনা ইসলাম

পোষ্টটি অন্যকে পড়ার সুযোগ করে দিতে শেয়ার করুন প্লিজ।

আন্তর্জালে কাশ্মীরি মেয়ে ও ‘ম্যারি কাশ্মীরি গার্ল’ সার্চ করে বিশ্ব কাঁপালেন আপনারা। ভাগ্যিস, গুগল ছিল! নইলে জানাই যেত না আপনাদের এমন সৌন্দর্যবোধের কথা। লিখছেন জিনাত রেহেনা ইসলাম

ফিলিস্তিন থেকে কাশ্মির দখলদারিত্বের উপাখ্যান

পোষ্টটি অন্যকে পড়ার সুযোগ করে দিতে শেয়ার করুন প্লিজ।

ইসরাইলের জায়নবাদীরা সমগ্র আরব ভূখন্ড নিয়ে গ্রেটার ইসরাইল গঠনের স্বপ্ন দেখে এবং সেই লক্ষ্য অর্জনে ফিলিস্তিনের অবশিষ্ট অংশে হাজার হাজার নতুন ইহুদি বসতি স্থাপনের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। ঠিক একইভাবে ভারতের হিন্দুত্ববাদীরা ঔপনিবেশিক আমলের বৃটিশ-ভারতভুক্ত সমগ্র অঞ্চল নিয়ে অখন্ড ভারতের স্বপ্ন দেখে।

শুধু কাশ্মীরিদের নয়, বিপদ সবারই

পোষ্টটি অন্যকে পড়ার সুযোগ করে দিতে শেয়ার করুন প্লিজ।

ভারতের এই ঘটনাবলির প্রতিক্রিয়া কেবল ভারতের রাজনৈতিক মানচিত্রের মধ্যে সীমিত থাকবে, এমন ভাববার পক্ষে ইতিহাস সাক্ষ্য দেয় না। এটা কেবল এই কারণে নয় যে কাশ্মীর নিয়ে পাকিস্তান-ভারতের ৭০ বছরের দ্বন্দ্ব-সংঘাত আছে। এই কারণেও যে এখন কোনো ঘটনাই সীমান্তে কাঁটাতার দিয়ে আটকানো যায় না। আপাতত যদি ভারতের সৈন্যরা কাশ্মীরে তাঁদের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠায় সক্ষমও হন, তবে তার অর্থ এই নয় যে কাশ্মীরে অনন্তকালের জন্য কবরের শান্তি নেমে আসবে।

আসামের এনআরসি আর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সফর কি সম্পর্কিত?

পোষ্টটি অন্যকে পড়ার সুযোগ করে দিতে শেয়ার করুন প্লিজ।

ভারতের এনআরসি মানে আসামের তথাকথিত বৈধ ভারতীয় নাগরিক বাছাই। কারা ভারতীয় নয়, তা খুঁজে বের করার নামে এক মুসলমানবিদ্বেষী প্রক্রিয়া। যার পেছনের বিদ্বেষী ভাবনা হলো, আসামের কোথাও কোনো মুসলমানকে পাওয়া গেলেই তা নিশ্চিত ধরে নেয়া যে সে বাংলাদেশ থেকে আসা অবৈধ উদ্বাস্তু। ভারতের সুপ্রিম কোর্টের তত্ত্বাবধানে গত ২০১৩ সালের ডিসেম্বরে তিন বছরের মধ্যে এই নাগরিক তালিকা তৈরির কাজ শেষ করে এক চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করতে হবে- এই নির্দেশ দেয়া হয়েছিল।

ইহুদী-খৃষ্টানদের বলির পাঁঠা কারা?

পোষ্টটি অন্যকে পড়ার সুযোগ করে দিতে শেয়ার করুন প্লিজ।

মুসলমানদের আগে নিজেদের কুরআন ও সুন্নাহর দিকে ফিরে আসতে হবে। তাদেরকে সব ধরণের গোঁড়ামি পরিহার করতে হবে। জ্ঞান ও বিজ্ঞানে মনোযোগ দিতে হবে। উদারপন্থী সূফীবাদকে পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে হবে। ধর্মান্ধতা পরিহার করতে হবে। ঘৃণার পরিবর্তে ঘৃণা না ছড়িয়ে ধৈর্য্য আর সহনশীলতা দিয়ে কৌশলে এগুতে হবে। সবার আগে প্রয়োজন মধ্যপ্রাচ্যের ঘুমিয়ে থাকা আরব ক্ষমতালোভী নেতাদের ঘুম থেকে জেগে উঠা।

কর্দোবা জামে মসজিদ আমাদের

পোষ্টটি অন্যকে পড়ার সুযোগ করে দিতে শেয়ার করুন প্লিজ।

যে স্পেন এক সময় মুসলমানেরা ৭ শ বছর ধরে শাসন করেছে, সে স্পেন এখন খৃষ্টানদের। কর্দোবার যে জামে মসজিদে ইসলামের ইতিহাসের বিখ্যাত সব স্কলার, মুহাদ্দিস, মুফাসসীর, পণ্ডিত ও বোদ্ধা ব্যক্তিবর্গ কুরআন, সুন্নাহ আর ফিকহের দরস দিতেন, সে মসজিদ আজ অমুসলিমদের দখলে। শুধু তা-ই নয়, সে মসজিদকে তারা রুপান্তর করেছে গির্জায়।

পার্বত্য অঞ্চল হবে স্বাধীন জুমল্যান্ড অথবা ভারতের অংশ দেশদ্রোহীদের এখনোই রুখতে হবে

পোষ্টটি অন্যকে পড়ার সুযোগ করে দিতে শেয়ার করুন প্লিজ।

আমরা বাংলাদেশের মুসলমানরা শান্তিপ্রিয় এবং অসাম্প্রদায়িক। আমরা সকল ধর্ম এবং বর্ণের মানুষ এক সাথে একই ভৌগলিক সীমারেখায় এক দেশের নাগরিক হিসেবে বসবাস করতে বদ্ধপরিকর। বাংলাদেশের বেশির ভাগ মানুষই উদার এবং ধর্মনিরপেক্ষতায় বিশ্বাসী। এই সুযোগটি কাজে লাগিয়ে দিকে দিকে বিভিন্ন সন্ত্রাসী, হিংস্র এবং সাম্প্রদায়িক শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। অনেকদিন থেকেই হিন্দুদের বিভিন্ন ষড়যন্ত্রের কথা শুনে আসছি। এবার শুনছি পার্বত্য অঞ্চলে বসবাসরত বৌদ্ধদের মুখ থেকে। তারা কেবল মুসলিম বিদ্বেষীই নয়, চরম হিংস্র এবং ভয়ংকর রকমের বর্ণবাদী।